Dainik Sotter Kontho - দৈনিক সত্যের কণ্ঠ
ঢাকাWednesday , 21 June 2023
  • অন্যান্য

২২ বছর যাবৎ বিদ্যুৎ বিহীন ভাবে চলছে কমিউনিটি ক্লিনিকের কার্যক্রম

Google News

বলছিলাম বরগুনার আমতলী উপজেলার গুলিশাখালীর পূর্ব কলাগাছিয়া কমিউনিটি ক্লিনিক এর কথা । ২২ বছর যাবৎ অর্থাৎ কমিউনিটি ক্লিনিক সৃষ্টির শুরু থেকে এখন অব্দি বিদ্যুতের সংযোগ পায়নি কমিউনিটি ক্লিনিকটি । এছাড়াও পর্যাপ্ত নেই আসবাবপত্র আসবাবপত্রের স্থানে রয়েছে একটি পুরাতন ভাঙ্গা আলমারি ও ব্যক্তিগত দুটি চেয়ার । গ্রামের ৭০ শতাংশ মানুষই ২৮ থেকে ৩০ ধরনের ওষুধ নিয়ে থাকেন এত্র কমিউনিটি ক্লিনিক হতে । তবে বিদ্যুৎ না থাকার ফলে সেবা দিতে কষ্টকর হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে জানান সিএইচসিপি কর্মরত মোসাম্মৎ হাওয়া বেগম ।

জানাগেছে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মস্থান গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়া উপজেলার পাটগাতি ইউনিয়নের গিমাডাঙ্গা গ্রামে ২০০৬ সালের ২৬ এপ্রিল মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কমিউনিটি ক্লিনিক উদ্বোধন করে তারই ধারাবাহিকতায় সারাদেশে কার্যক্রম চালু হয় । ২০০১ সালের মধ্যেই ১০ হাজার ৭২৩টি কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করা হয় । ২০০৯ সালে শেখ হাসিনার সরকার আবার ক্ষমতায় আসলে প্রাণ ফিরে পায় কমিউনিটি ক্লিনিক । বর্তমানে প্রায় ২০ হাজারেরও অধিক কমিউনিটি ক্লিনিক এর মাধ্যমে দেশব্যাপি বিস্তৃত স্বাস্থ্য সেবা পরিচালিত হচ্ছে । বর্তমানে আমতলী প্রত্যন্ত অঞ্চলে মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে কমিউনিটি ক্লিনিক । সার্বিক প্রজনন স্বাস্থ্য পরিচর্যা আওতায় গর্ভবতী মহিলাদের প্রসব পূর্ব প্রতিষেধক টিকাদান সহ পরবর্তী নবজাতকের সেবা, সময়মত যক্ষা, ডিপথেরিয়া, হুপিং কফ, পোলিও, ধনুস্টংকার, হাম, হেপাটাইটিস- বি, নিউমোনিয়াম সহ বিভিন্ন ধরনের রোগের চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয় । তবে বিদ্যুৎ না থাকার ফলশ্রুতিতে অধিকাংশ সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে এসব অঞ্চলের সেবা নিতে আসা মানুষজন ।

পূর্ব কলাগাছিয়া কমিউনিটি ক্লিনিকের হেল্প কেয়ার প্রোভাইডার( সিএইচসিপি) মোসাম্মৎ হাওয়া বেগম জানান, আমি ২০২১ সালের অক্টোবর মাসে এই ক্লিনিকে যোগদান করি যোগদানের পর থেকে অনেক বার আমতলী পল্লী বিদ্যুতে আবেদন করলেও এখন পর্যন্ত কোন সাড়া পাইনি । আমতলী পল্লী বিদ্যুৎ জোনাল অফিসে যতবার আবেদন করি তাদের কোন সাড়া পাইনা । পরবর্তীতে কিছুদিন পরে বলেন আপনি কোন আবেদন করেননি ।
আমি সর্বশেষ ১৭ই এপ্রিলে পুনরায় আবেদন করি ।

পূর্ব কলা গাছিয়া কমিউনিটি ক্লিনিক সেবা নিতে আসা মোসাম্মৎ আলেয়া বেগম বলেন’ মধ্যে হানলে মোনে হয় মোরা জাহান্নামের মধ্যে হানছি, গরমে পাঁচ মিনিটে বেশি থাকার কোন উপায় নেই’ ।

জমিদাতা মৃত লালু মাদবারের ছেলে রাজা মাদবার বলেন, বিদ্যুৎ না থাকায় ক্লিনিকে আসা রোগীদের ও ক্লিনিকের আপার অনেক কষ্ট হয় । আমাদের ক্লিনিকে তাড়াতাড়ি বিদ্যুতের ব্যাবস্থা প্রধানমন্ত্রীর করে দিবেন ।

ইজি বাইক চালক মোঃ ফেরদাউস সিকদার বলেন, এখানে আসলে শারীরিক ছোট ছোট সমস্যাগুলো খুব দ্রুত সমাধান হয়ে যায় । তবে বিদ্যুৎ নাই এটা খুব কষ্টকর । ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা তবে আমাদের এখানে এখনো আমরা বিদ্যুৎ পাই নাই । তাই সরকারের নিকট আবেদন আমাদের ক্লিনিকে অতি দ্রুত বিদ্যুৎ এর ব্যাবস্থা করে দিবেন ।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল মোনায়েম সাদা মুঠোফোনে বলেন, আমরা বার বার তাদের নিকট আবেদন করেছি । এখন তারা যদি বিদ্যুৎ এর ব্যাবস্থা না করে দেন তাহলে আমরাতো আর তাদের সাথে জোর করতে পারি না ।

আমতলী পল্লী বিদ্যুৎ জোনাল অফিস বারবার ফোন করে তাদের কোন সাড়া পাওয়া যায়নি ।