At bagon.la you can Buy webshells, phpmailer, Combo list
ঘোড়ার মাংস বিক্রির অভিযোগে ৩ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা - দৈনিক সত্যের কণ্ঠ
Dainik Sotter Kontho - দৈনিক সত্যের কণ্ঠ
ঢাকাFriday , 16 June 2023
  • অন্যান্য

ঘোড়ার মাংস বিক্রির অভিযোগে ৩ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

Google News

লক্ষ্মীপুরে শহরের ঝুমুর হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টে গরুর মাংস বলে ঘোড়ার মাংস বিক্রির অভিযোগে মামলা করা হয়েছে । এতে হোটেল মালিক মো. সবুজ, হোটেলের ম্যানেজার মো. রিয়াজ এবং মাংস সরবরাহকারী মো. চৌধুরী ওরফে শাহ আলমকে আসামি করা হয় ।

মামলার পর আদালত তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন । বৃহস্পতিবার( ১৫ জুন) দুপুরে চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্টেট আদালতে নাজির ইয়াসিন আরাফাত বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ।

তিনি বলেন, খাবার হোটেলে গরুর মাংস বলে ঘোড়ার মাংস বিক্রি করে কর্তৃপক্ষ প্রতারণা করে আসছে বলে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন আবদুল কাদের নামে এক ব্যক্তি । পরে এ ঘটনায় আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক তারেক আজিজ আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন । আসামিদের গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করার জন্য সদর মডেল থানাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ।

মামলার বাদী আবদুল কাদের লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়নের পশ্চিম লতিফপুর গ্রামের সফি মিয়ার ছেলে ।

আদালত সূত্র জানায়, বাদী আবদুল কাদের জীবিকার তাগিদে বিভিন্ন কাজে নিজ বাড়ি থেকে লক্ষ্মীপুর শহরে আসা- যাওয়া করেন । এতে অধিকাংশ সময় দুপুরের খাবার হোটেলে খেতে হয় । গত ১৭ মে তিনি জেলা প্রশাসকের কার্যালয় এলাকার ঝুমুর হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টে খাবার খেতে যান । তখন হোটেল কর্মচারীরা ভালো গরুর মাংস আছে বলে জানান । সরল বিশ্বাসে বাদী গরুর মাংস অর্ডার করেন । কিন্তু খাওয়ার সময় তার সন্দেহ হয় । এ ঘটনায় তিনি মামলার আসামি সবুজ ও রিয়াজের কাছে মাংসের বিষয়ে জানতে চান । কিন্তু তারা জানান, হোটেলে গরুর মাংসই বিক্রি হয় । সকালে কিনে এনে তাজা গরুর মাংস রান্না করা হয় ।

এই দিকে, দুইদিন পর একটি অনলাইন গণমাধ্যমে ঝুমুর হোটেলে ঘোড়ার মাংস বিক্রি করা হয় বলে সংবাদ পরিবেশন হয় । সংবাদটি আবদুল কাদেরের নজরে পড়ে । এতে জানতে পারেন, কসাই চৌধুরীর কাছ থেকে ঘোড়ার মাংস এনে ঝুমুর হোটেলে বিক্রি করা হয় । এ ঘটনায় পুলিশ হোটেল মালিক সবুজ ও কসাই চৌধুরীকে আটক করে । এতে তদন্ত করে ঘটনাটি সত্য প্রমাণ হয়েছে বলে এজাহারে দাবি করেছেন বাদী ।

এজাহারে আরও বলা হয়, এটি প্রতারণা ও বিশ্বাসঘাতকতা । হাজার হাজার মানুষের সঙ্গে হোটেল কর্তৃপক্ষ প্রতারণা করে আসছে । এজন্য আবদুল কাদের বাদী হয়ে বুধবার( ১৪ জুন) সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তিনজনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেন ।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা( ওসি) মোসলেহ উদ্দিন বলেন, মামলার বিষয়টি আমার জানা নেই । গ্রেফতারি পরোয়ানার নির্দেশনা এখনো আমাদের হাতে আসেনি । নির্দেশনার চিঠি পেলেই আসামিদের গ্রেফতার করে যথাসময়ে আদালতে সৌপর্দ করা হবে ।

এর আগে দুইজনকে আটকের বিষয়ে ওসি বলেন, খবর পেয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের আটক করা হয়েছিল । তবে পরে মামলা দেওয়ার জন্য কোনো অভিযোগকারী বা সাক্ষী না থাকায় ছেড়ে দেওয়া হয়