At bagon.la you can Buy webshells, phpmailer, Combo list
চিরিরবন্দরে জমে উঠেছে গরুর হাট, ক্রেতারা বলছেন দাম বেশি - দৈনিক সত্যের কণ্ঠ
Dainik Sotter Kontho - দৈনিক সত্যের কণ্ঠ
ঢাকাThursday , 22 June 2023
  • অন্যান্য

চিরিরবন্দরে জমে উঠেছে গরুর হাট, ক্রেতারা বলছেন দাম বেশি

Google News

দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার সবচেয়ে বড় হাট রানীরবন্দর হাট । ইতিমধ্যে ছোট- বড় নানা ধরনের গরুতে ভরে গেছে হাট । তবে গত বছরের চেয়ে এবার কোরবানির গরুর দাম বেশি বলে জানিয়েছেন ক্রেতা ও ব্যবসায়ীরা ।

আজ বৃহস্পতিবার গিয়ে দেখা যায়, জমে উঠেছে রানীরবন্দর গরুর হাট । দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে ক্রেতা ও ব্যবসায়ীরা গরু কিনে নিয়ে যাচ্ছেন । ছোট- বড়, ষাঁড়- বলদ, বকনা- গাভি মিলিয়ে প্রায় ১০ হাজার গরু হাটে এসেছে । তবে হাটে বড় গরুর চেয়ে ছোট ও মাঝারি গরু বেশি চোখে পড়েছে ।

উপজেলার আলোকডিহি গ্রামের খামারি মো. আবদুল্লা হাটে বিক্রির জন্য পাঁচটি ষাঁড় এনেছেন । তাঁর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রতিটি গরুর দাম চাইছেন ৭৫ থেকে ৯৫ হাজার টাকা ।

অপর খামারি বেলাল জানান, গরুর খাবারের দাম বেশি । বছরে একটি গরুর পেছনে ১৪ থেকে ১৮ হাজার টাকা খরচ হয় । এই অবস্থায় প্রতিটি গরু গড়ে ৭৫ হাজার টাকায় বিক্রি করতে না পারলে পোষাবে না ।

খানসামার গোয়ালডিহি গ্রামের রহিমদ্দিন বলেন, কোরবানির হাটে বিক্রির উদ্দেশে এলাকার প্রতিটি কৃষক পরিবার গরু পালন করে । তিনি নিজে যে গরুটি হাটে এনেছেন বিক্রি করতে, সেটি ছয় মাস আগে কিনেছিলেন ৪০ হাজার টাকায় । গরুটি পুষে বড় স্বাস্থ্যবান করার পর এখন দাম চাইছেন ৭৫ হাজার টাকা । কিন্তু ক্রেতারা ৬০- ৬৫ হাজার টাকা দাম বলছেন ।

রানীরবন্দর হাটে আসা গরু ব্যবসায়ী জাবেদ বলেন, গত বছর যে গরু ৫৫ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে, সেরকম গরু এখন ৬৫ থেকে ৭০ হাজার টাকায় কিনতে হবে । ভারত থেকে গরু আসছে না । তাই দাম কিছুটা বেশি ।
গরু ব্যবসায়ী হোসেন আলী বলেন, কোরবানি ঈদের জন্য আমরা এই হাট থেকে গরু নিয়ে যাচ্ছি সিলেটে । গত বছরের তুলনায় এবার প্রতিটি গরু ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা বেশি দিয়ে কিনতে হচ্ছে ।

দেবীগঞ্জ থেকে গরু কিনতে আসা আনিসুর রহমান বলেন, এবার গরুর দাম অনেক বেশি । গত বছর যে গরু ৬০ হাজার টাকা ছিল, সেই গরু এখন কিনতে হচ্ছে ৭৫ থেকে ৮০ হাজার টাকায় ।

এদিকে নজরুল নামে আরেক ক্রেতা বলেন, ‘ হাটে অনেক গরু এলেও দাম কমেনি । ঈদের আরও কয়েক দিন আছে । সামনে হাটে দাম কম হতে পারে তাই আজ চলে যাচ্ছি । ’

হাটের ইজারাদার মো. আতিকুর রহমান বলেন, গরু ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন বিষয়ে মাইক দিয়ে সচেতন করা হচ্ছে । পাশাপাশি নিরাপত্তা নিশ্চিতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে ।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মো. আবুল সারফারাজ হোসেন বলেন, এই উপজেলায় প্রায় ২৮ হাজার গরু মোটাতাজাকরণ করা হয়েছে । শুধুমাত্র সুষম গো খাবার সরবরাহ করে এই অঞ্চলের গরু মোটাতাজাকরণ করায় এখানকার পশুর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে । এগুলো চিরিরবন্দর হাট- বাজারে বিক্রির জন্য নিয়ে যাচ্ছেন খামারিরা । এখানকার চাহিদা পূরণ করেও রাজধানীসহ বিভিন্ন এলাকায় সরবরাহ করা হচ্ছে পশু ।